Home | Webmail | FAQ | Contact

 

Menu
 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ ‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন বাঙালির জন্য চির অনুকরণীয়’ - রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আলোচনা সভায় ড. হারুন-অর-রশিদ

তারিখ : ২৩.৮.২০১৭

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন বাঙালির জন্য চির অনুকরণীয়’
- রাজশাহী  বিশ্ববিদ্যালয়ের আলোচনা সভায় ড. হারুন-অর-রশিদ

জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে ২৩শে আগস্ট ২০১৭ বিকেল ৫টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজ মিলনায়তনে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ড. স্বরোচিশ সরকার-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ তাঁর লিখিত বক্তব্যে বলেন, “রাজনীতিতে ক্ষমতা লাভ, সরকার গঠন ইত্যাদি সাধারণত প্রধান বিবেচ্য বিষয় হলেও বঙ্গবন্ধুর ক্ষেত্রে তা ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। পাকিস্তানি শাসনপর্বে তাঁর সকল চিন্তা-চেতনা জুড়ে ছিল বাঙালির জাতীয় মুক্তি বা স্বাধীনতার স্বপ্ন। ১৯৭১ সালে তাঁর নেতৃত্বেই বাঙালির জাতি-রাষ্ট্র বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা পায়। তবে স্বতন্ত্র রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মধ্যেই বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক ভাবনা সীমাবদ্ধ ছিল না। তা ছিল আরো গভীর, বিস্তৃত ও সুদূর প্রসারী। স্বাধীন রাষ্ট্রভাবনার পাশাপাশি তাঁর রাজনৈতিক দর্শনের কেন্দ্র বিন্দুতে ছিল মানবপ্রেম ও গণমানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন, তাঁর কথায়, ‘দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো।’ বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাঙালি সমাজের সমন্বয়, সমতা ও সম্প্রীতির শ^াশত ঐতিহ্য ও ধারা, অন্যকথায়, সংশ্লেষনাত্মক সংস্কৃতি (Syncretistic Culture)-র স্বার্থক প্রতিনিধি। সংক্ষেপে, বাংলাদেশ রাষ্ট্র পরিচালনার চার মূলনীতি জাতীয়তাবাদ, শোষণমুক্তি অর্থে সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতাসহ ৭২-এর সংবিধানে আমরা বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শনের সামগ্রিক পরিচয় পাই। বাঙালির স্বাধীন অস্তিত্ব, জাতীয় সংহতি ও রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ উন্নয়ন-অগ্রগতির ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর দর্শন বাঙালির জন্য চির অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।”


আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম. আব্দুস সোবহান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রো-উপাচার্য ড. আনন্দ কুমার সাহা। অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সূধীজন উপস্থিত ছিলেন।

ডাউনলোড (Download)


(মোঃ ফয়জুল করিম)
পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত)
জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দফতর
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

Last Updated on Thursday, 24 August 2017 04:47

Go to top